অভিমতস্লাইড

স্বাস্থ্য অব্যবস্থাপনা

ডা. আব্দুল্যাহ আল মাসুম :

ঔষধ কোম্পানি এদেশে কতোগুলো দরকার?
সকল কোম্পানির ঔষধের মান কি সমান? বাজারে চলমান ঔষধ এর মান যাচাই বাছাই করার জন্য যে সকল প্রতিষ্ঠান আছে – তাদের কি সেই সক্ষমতা আছে যে নিয়মিত তদারকি করবে?

স্বাস্থ্য সেক্টরে প্রত্যেক পদে পদে সমস্যা ! চিকিৎসক দের সংগঠন গুলো আজ পর্যন্ত কোন ৫/১০/৫০/১০০ বছরের পরিকল্পনা দিতে পারেনি – সরকার কে! এডহক ভিত্তিক যে ২/৪ খানা প্রস্তাব দেওয়া হয় – তাও আবার আমলা প্রজাতি তাদের ক্ষুরধার জ্ঞান গর্ভ দিয়ে কাটসাট করে ৭ দিনের কাজ ৭ মাস লাগিয়ে বাহাবা কুড়ান টপ লেভেল হতে। আমাদের নেতারা দিনদিন হয়ে পড়ছেন – আমড়া কাঠের ঢেঁকি! সাথে বহুমাত্রিক দ্বন্দ্ব লাগিয়ে দিয়ে – আমলা বা মন্ত্রী তাদের কাজ হাসিল করে নিচ্ছেন! যদিও তাতে জনগন বা চিকিৎসা কর্মী কারোরই লাভ হচ্ছে না।

রোগীর হাসপাতালে আগমন
চিকিৎসা নেওয়া
পরীক্ষা নিরীক্ষা করা
ভর্তি হওয়া
নিয়মিত ফলোআপ করা
গবেষণা কার্যক্রম
মেডিকেল শিক্ষা ( বিভিন্ন লেভেল সহ)
শিক্ষক তৈরি
চিকিৎসা সহকর্মী – নিয়োগ, বদলি, পদোন্নতি
চিকিৎসা প্রশাসন
ওষুধ প্রশাসন ( উৎপাদন টু খুচরা বিক্রি)
জনস্বাস্থ্য শিক্ষা
বেসরকারি চিকিৎসা প্রতিষ্ঠান – ব্যবস্থাপনা
মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়
আন্তর্জাতিক মানোন্নয়ন
বৈদেশিক কর্মসংস্থান

ইত্যাদি ধাপগুলোর কোনটা নিয়ে বলতে চান? হাজার হাজার পাতা লিখলেও সমস্যা লিখে শেষ করা যাবে না।

এর মুল কারণ – আমরা মান্ধাতার আমলেই রয়েছি। বিশ্ব পরিবর্তন হয়েছে। আমরা হইনি।

একটা স্বাস্থ্য নীতিমালা আছে মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটে। হাস্যকর। ভেইগ সব কথাবার্তা! কোন প্লান বা লক্ষ মাত্রা নেই।

অনেকেই বলে থাকেন – আমাদের সমস্যা আমরাই সমাধান করবো। আর কবে করবেন? ৪৮ বছর কেটে গেল!

একটা ভাল সিস্টেম আমদানি করে, সেখানে বরং সংযোজন পরিমার্জন করুন।

এখন একটা রোগী দেওয়ানগঞ্জ হতে পরীক্ষা নিরীক্ষা করে আসলে ঢাকায় তা ফেলে দেওয়া হয়। আবার ঢাকার টা দিল্লি ফেলে দেয়! অপচয় টা কার হলো?
প্রাইমারী ল্যাব, সেকেন্ডারি ল্যাব, টারশিয়ারি ল্যাব এবং রিসার্চ ল্যাব – এভাবে যদি ল্যাব অংশটা সাজানো যেতো – জনগণের হয়রানি অনেকটা কমে আসতো।

এখন হতেও যদি সাজাতে চাই আমরা – উপরোল্লিখিত সেক্টর গুলো সব ঠিক ঠাক হতে আরও ১৫ বছর তো লাগবেই।

স্বাস্থ্য নাগরিকদের মৌলিক অধিকার। আমাদের খাদ্য, বস্ত্র, বাসস্থান হয়ে গেছে মোটামুটি। এখন শিক্ষা এবং স্বাস্থ্য কে সাজাতে দল মত নির্বিশেষে ঐক্যবদ্ধ একটা মহা পরিকল্পনা এবং গুণীজন দিয়ে বিভিন্ন বোর্ড করে করে খাত ভিত্তিক – ৫/১০/১৫ বছরের পরিকল্পনা এবং মালেশিয়া বা সৌদি স্বাস্থ্য ব্যবস্থাপনা সিস্টেম এর মতো একটা পদ্ধতি বাস্তবায়ন করতে পারলে –
আমাদের আর ঠেকায় কে?