খবরবিদেশলীড

অ্যানাটমির কিংবদন্তী শিক্ষক অধ্যাপক ডা. এ কে দত্ত আর নেই

পরপারে চলে গেলেন অ্যানাটমির কিংবদন্তি অধ্যাপক ডা. অসীম কুমার দত্ত (A.K. Datta)। বুধবার সকালে কলকাতায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি।

কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নাতকোত্তর ইনস্টিটিউট অব বেসিক মেডিকেল সায়েন্সেস এর প্রাক্তন অধ্যাপক এবং অ্যানাটমির বিভাগীয় প্রধান ছিলেন অধ্যাপক ডা. অসীম কুমার দত্ত।

অসাধারণ এই শিক্ষকের লেখা বই মেডিকেলের সকল শিক্ষার্থীর কাছে ছিল যাদুর পরশের মত। এই বই দিয়েই মেডিকেল জীবন শুরু করেন শিক্ষার্থীরা। একজন শিক্ষক ও মানুষ হিসেবে তিনি ছিলেন অতুলনীয়।

নিজের কাজের ক্ষেত্রে জীবদ্দশায় কিংবদন্তী হয়ে উঠেন অসীম দত্ত। এমবিবিএসে ভর্তি হয়েছিলেন ১৯৪৪-এ। ১৯৫৩-য় শিক্ষকতা শুরু, তাতে ছেদ পড়েনি মৃত্যু অবধি। ছিলেন নেপালের এক মেডিক্যাল কলেজের এমেরিটাস অধ্যাপক। কলকাতার কেপিসি মেডিক্যাল কলেজে তাঁর নামে চেয়ার রয়েছে। তাঁর সম্মানে অন্ধ্রপ্রদেশের রাজীব গাঁধী ইনস্টিটিউট অফ মেডিক্যাল সায়েন্সেস-এর অ্যানাটমি বিভাগটির নাম হয়েছে ‘দত্তস স্কুল অফ অ্যানাটমি।’ অ্যানাটমিক্যাল সোসাইটি অফ ইন্ডিয়া সদ্য তাঁর জীবনভরের অবদানকে বিশেষ স্বীকৃতি দিয়েছে। সোসাইটির সদস্যদের মতে, অ্যানাটমি’র মতো একটা মৃত বিষয়কে জীবন্ত করে তুলতে ওঁর জুড়ি নেই। তাই অসীমবাবুর সারা জীবনের কাজ নিয়ে এসএসকেএম তথা ইনস্টিটিউট অফ পোস্ট গ্র্যাজুয়েট মেডিক্যাল এডুকেশন অ্যান্ড রিসার্চ-এর নতুন অ্যাকাডেমিক ভবনে একটা গ্যালারি চালু করেছে তারা।

চিকিৎসকদের মূল্যবোধে টান পড়েছে, এ কথা তিনি বিশ্বাস করতেন না। অসীম কুমার বলতেন “আমি এমবিবিএস পড়তে ঢুকেছি ব্রিটিশ আমলে। পড়া শেষ করেছি স্বাধীন ভারতে। কত পরিবর্তন দেখলাম! কত প্রজন্মকে পড়ালাম! আমি মনে করি না যে, ডাক্তারদের মধ্যে মূল্যবোধের অবক্ষয় ঘটছে। দু’-একটা বিচ্ছিন্ন ঘটনা হয়তো ঘটতে পারে। কিন্তু সেটাই একমাত্র সত্য নয়।”