খবরবিদেশলীড

দেহে পর্যাপ্ত অ্যান্টিবডি তৈরি করছে চীনের টিকা

অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রজেনেকা, মর্ডানা বায়োটেকের মতোই ট্রায়ালে তিনটি পর্যায়ে এগিয়ে রয়েছে চীনের প্রথম সারির ফার্মাসিউটিক্যাল কোম্পানি সিনোফার্মের তৈরি ভ্যাকসিন। সম্প্রতি সংযুক্ত আরব আমিরাতে  তৃতীয় পর্যায়ের ট্রায়াল চালাচ্ছে কম্পানিটি। প্রথম দুই পর্যায়ের ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালে ভ্যাকসিনটি কেমন কাজ করেছে, সেই প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে  কম্পানিটি। এতে করে জানা যায় ভ্যাকসিনটি প্রয়োগের পর শরীরে পর্যাপ্ত পরিমাণে অ্যান্টিবডি তৈরি হয়েছে। জার্নাল অব দ্য আমেরিকান মেডিক্যাল অ্যাসোসিয়েশনে শুক্রবার এই গবেষণার প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে।

চীনের ডিজিজ কন্ট্রোল অ্যান্ড রিসার্চ ইনস্টিটিউট দাবি করেছে, এই ভ্যাকসিন মানুষের শরীরে নিরাপদ ও সুরক্ষিত। তৃতীয় পর্যায়ে সংযুক্ত আরব আমিরাতে ১৫ হাজার মানুষের উপর ভ্যাকসিন প্রয়োগ করা হচ্ছে।

সিনোফার্ম জানিয়েছে, প্রথম ও দ্বিতীয় পর্যায়ে ৩২০ জনকে  ভ্যাকসিন দেওয়া হয়। এর মধ্যে প্রথম পর্যায়ে ৯৬ জনকে অল্প ডোজের ভ্যাকসিন দেওয়া হয়েছিল। দ্বিতীয় পর্যায়ে ২২৪ জনকে দেওয়া হয়। ওই পর্যায়ে ডোজের পরিমাণ সামান্য বাড়ানো হয়। ফলাফলে ভ্যাকসিনের ডোজে শরীরে পর্যাপ্ত পরিমাণে অ্যান্টিবডি তৈরি হয়েছে।

সিনোফর্মের চেয়ারম্যান গত মাসে গণমাধ্যমকে বলেছিলেন যে এই বছরের শেষের দিকে একটি সম্ভাব্য ভ্যাকসিন প্রস্তুত হতে পারে, প্রায় তিন মাসের মধ্যে তিন ধাপের পরীক্ষা শেষ হওয়ার আশা করা হচ্ছে।

সারা বিশ্বজুড়ে ১৫০ টিরও বেশি ভ্যাকসিন নিয়ে কাজ চলছে। এরই মধ্যে আটটি ভ্যাকসিনের নেতৃত্ব দিচ্ছে চীন।