অভিমতলীড

নান্দাইলে প্রথম ১০০ দিন

ডা. মাহমুদুর রশিদ :

নান্দাইল শব্দটি আসলে হুমায়ূন আহমেদর নাটকের সুবাদে প্রথম শুনি। তখন বোধ হয় আমি হাইস্কুলের বা কলেজের ছাত্র। বিটিভি ছাড়া আর কোন টেলিভিশন চ্যানেল তখন ছিলোনা।আর জনপ্রিয় অনুষ্ঠানগুলোর মধ্যে সপ্তাহিক নাটক বিশেষ করে করে হুমায়ূন আহমেদের নাটকগুলো ভীষণ ভালো লাগার অনুষ্ঠান ছিল।

নান্দাইল শব্দটি তাই নান্দাইলের ইউনুস এর সমার্থক হয়ে গেছে যেমনটি সকলেই মনপুরাকে চিনতে চায় মনপুরা ছায়া ছবি দিয়ে।

অপ্রত্যাশিতভাবে আমি নান্দাইল কর্মস্থলে যোগদান করি। সবাই আসলে আমার কর্মস্থলের কথা শুনলে ‘ও নান্দাইলের ইউনুস’ এই বাক্যটি উচ্চারণ করেন মনের অজান্তেই।

গত ২৩.১১.২০২০ নান্দাইলে আমার ১০০ দিন পাড় হয়েছে।ভিন্ন পরিবেশ স্বাস্থ্য সেবাখাতে ভিন্ন প্রেক্ষাপট। কোন প্রকার পিছুটান ছাড়াই আমার পথচলা।যে পথচলায় আমাকে শক্তি যোগায় সততা এবং কর্তব্যনিষ্ঠা তা আমার বয়স যতই হোক।

বিগত ১০০ দিনের আমার কর্মকালকে মূল্যায়ন করি এভাবে,

১. দৃঢ় মনোবল, পরিবারের সমর্থন ও প্রশাসনিক দক্ষতাকে কাজে লাগিয়ে হাসপাতাল ও মাঠ কর্মীদের মধ্যে শৃঙ্খলা ও পারস্পরিক সম্পর্ক উন্নয়ন করতে পারা।

২. রাজনীতিবিদ, সাংবাদিক, সুশীল সমাজ, স্থানীয় সরকার প্রতিনিধি, উপজেলা প্রশাসনের সকলের সাথে আস্থার পরিবেশ তৈরি করতে পারা।

৩.সেবা প্রাপ্তি সহজ লভ্য করার প্রচেষ্টা চালিয়ে যাওয়া।

৪.সিজারিয়ান সেকশন চালু করতে পারা।

৫.গ্রামীণ জনগণের সাথে মতবিনিময়ের মাধ্যমে নান্দাইল হাসপাতালে সেবা প্রাপ্তিতে বাধাসমূহ চিহ্নিত করতে পারা।
আগামী ১০০ দিনে যে পরিকল্পনা তা হলো : i) হাসপাতালের সার্বিক পরিবেশের ব্যপক পরিবর্তন আনায়ন, II)গ্রামীণ জনপদে গর্ভবতীর গর্ভকালীন পরিচর্যা ও নিরাপদ ডেলিভারি নিশ্চিত করা। III) অসংক্রামক ব্যাধি যেমন ডায়াবেটিস, হৃদরোগ, ক্যানসার সম্পর্কে সচেতনতা বাড়ানো। IV) কমিউনিটি ক্লিনিকের মনিটরিং বাড়ানো, EPI কর্মসূচি জোরদার করা এবং যেটি সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ সেটি হলো কোভিড-১৯ মোকাবেলায় স্বাস্থ্যকর্মীদের মনোবল অটুট রাখা।
সকলের দোয়া ও সহযোগিতা কামনা করছি।