গবেষণাযৌন স্বাস্থ্যলীড

বিয়ের আগ্রহ কমাচ্ছে পর্ণগ্রাফি

ইন্টারনেটে পর্নোগ্রাফির সহজলভ্যতার কারণে তরুণ-তরুণীদের বিয়ের আগ্রহ কমছে। বিয়ের প্রবণতা ও ইন্টারনেটে পর্নোগ্রাফির ওপর এ গবেষণা শেষে  এমনই তথ্য দিয়েছেন বিজ্ঞানীরা। জার্মান ইনস্টিটিউট ফর দ্য স্টাডি অব লেবার নামক প্রতিষ্ঠানের ঐ গবেষণায় দেখা গেছে, বিয়েতে না জড়ানোর বিষয়ে অর্থাৎ বিয়ের আগ্রহ হ্রাসে পর্নোগ্রাফির প্রভাব রয়েছে।

গবেষকরা জানান, বিয়ের অন্যতম কারণ যৌনবাসনা চরিতার্থ করা। বর্তমানে বিবাহ বহির্ভূত যৌনবাসনা চরিতার্থের সুযোগ বাড়ছে। তাই এই কাজের জন্য বিয়ের প্রয়োজনীয়তাও হ্রাস পাচ্ছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, ‘ইন্টারনেটের উল্লেখযোগ্য অংশ জুড়ে রয়েছে পর্নোগ্রাফি। এর ব্যাপক বিস্তারের কারণে বিয়ের জনপ্রিয়তা কমছে। বিয়ের বিষয়ে মানুষের আচরণ পর্যবেক্ষন করে গবেষকরা বলেন, যৌবনের শুরুতে বিয়ে করলে বেশ ভালো অংকের অর্থ খরচ করতে হয়। তাই সস্তা পর্নোগ্রাফি সন্দেহাতীতভাবে বিয়ের হার কমানোর জন্য দায়ী।

গবেষকদের আরো দাবি, ইন্টারনেট কেবল পর্নোগ্রাফিকে সস্তাই করেনি বরং এর সংগ্রহ সংক্রান্ত ব্যয়ও কমিয়েছে। অর্থাৎ এখন আর কাউকে বুকস্টল থেকে পর্নো ম্যাগাজিন সংগ্রহের লজ্জায় পড়তে হয় না। সর্বোপরি সস্তা পর্নোগ্রাফি মানুষকে একা থাকাটা আরও সহজ করেছে।

এছাড়া যেসব পর্নোগ্রাফিভক্ত ধর্মীয় ‍উপাসনালয়ে যেতে আগ্রহী কম হয়; কোনো অপরাধবোধ ছাড়াই তারা সঙ্গীদের সঙ্গে প্রতারণা করে । এমনকি এরা অর্থের বিনিময়ে কিংবা স্বেচ্ছায় যৌনকর্মে জড়িয়ে পড়ে।

 

নিরাময়২৪/এমএস/ইএইচএস